• বৃহস্পতিবার , ১৩ জুন ২০২৪

ক্যাসিনো ডনে আক্রোশ -গুলির ঘটনার পর মামলা


প্রকাশিত: ৯:০৩ পিএম, ৪ জুন ২৪ , মঙ্গলবার

নিউজটি পড়া হয়েছে ১২ বার

নারায়ণগঞ্জ ও রুপগঞ্জ প্রতিনিধি : অবশেষে ক্যাসিনো ডন সেলিম প্রধানের বাড়িতে গুলির ঘটনায় ১০ দিন পর রুশ স্ত্রীর মামলা নিয়েছে থানা পুলিশ। ক্যাসিনো ডনের প্রতি এলাকাবাসীর আক্রোশ থেকে এ হামলা হতে পারে বলেও পুলিশ ধারনা করছে। নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ক্যাসিনো-কাণ্ডে আলোচিত সেলিম প্রধানের বাড়িতে হামলা ও গুলির ঘটনার ১০ দিন পর মামলা হয়েছে।গতকাল সোমবার রাতে সেলিম প্রধানের রুশ স্ত্রী আনা প্রসভেতোভা বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় মামলাটি করেন। মামলায় ৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৩০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা দৈনিক সত্যকথা প্রতিদিন কে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মঙ্গলবার ৪ জুন বিকেল পর্যন্ত এ ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। মামলায় সেলিম প্রধানের জমির ভাড়াটে মজিবুর রহমানকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। অন্য আসামিদের মধ্যে গোলাকান্দাইল এলাকার আলোচিত সন্ত্রাসী মো. আল আমিন, কামাল হোসেন ও ফেরদাউসের নাম আছে।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, গত ২৪ মে সকাল সাতটা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত টানা ১১ ঘণ্টা ধরে সেলিম প্রধানের বাড়িতে হামলা হয়। হামলার সময় সেলিম প্রধানের বাড়ি ও বাড়িতে থাকা গাড়ি, সিসি ক্যামেরাসহ আসবাবপত্র ভাঙচুর করা হয়। এ সময় বাড়িতে থাকা সেলিম প্রধান, তার স্ত্রী আনা প্রসভেতোভা ও তিন সন্তানকে হত্যার উদ্দেশ্যে বাড়িতে গুলি চালানো হয়। পরে তাঁদের হত্যা করে গুম করে ফেলা এবং বাড়ি ও জমি দখলের হুমকি দেয় হামলাকারীরা। এতে তাঁর তিন সন্তান মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

২৪ মে সকালে সেলিম প্রধানের বাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে সেলিম প্রধান ও তাঁর জমির ভাড়াটে মজিবুর রহমান পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেন। সেলিম প্রধান তখন অভিযোগ করেছিলেন, তাঁর একটি আড়তের দখল নেওয়াকে কেন্দ্র করে রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সদ্য নির্বাচিত চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুর রহমান ও তাঁর ব্যবসায়িক অংশীদার মজিবুর রহমানের লোকজন হামলা চালিয়েছেন। তবে মজিবুর হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছিলেন, সেলিম প্রধান নিজেই নিজের বাড়িতে ভাঙচুর করেছেন।