• সোমবার , ২২ জুলাই ২০২৪

শিশু হাসপাতালের আইসিইউ পুড়ে ছাই


প্রকাশিত: ৯:২০ পিএম, ১৯ এপ্রিল ২৪ , শুক্রবার

নিউজটি পড়া হয়েছে ৬১ বার

 

মেডিকেল রিপোর্টার : রাজধানীর শিশু হাসপাতালের পাঁচতলায় নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) শুক্রবার এক ঘণ্টার আগুনে পুড়ে গেছে জরুরি যন্ত্রপাতি। ফায়ার সার্ভিসের ধারণা, এসি বিস্ফোরণ থেকে এই আগুনের সূত্রপাত। এ সময় তাৎক্ষণিকভাবে রোগীদের আইসিইউ থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়। এ ঘটনায় পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা তিনদিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবে।

শুক্রবার বেলা পৌনে দুইটার সময় রাজধানীর শিশু হাসপাতালের বি ব্লক ভবনে আগুন লাগার খবরে ছড়িয়ে পড়ে আতঙ্ক। ছুটোছুটি শুরু হয় রোগী ও স্বজনদের। ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়ে ভবনের পাঁচতলার কার্ডিয়াক আইসিইউ। অতি দ্রুত সেখানে উপস্থিত হয় ফায়ার সার্ভিসের দুটো ইউনিট। পরে আরও তিনটি ইউনিট যোগ দেয়।

এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ‘বেসিনের কাছে একটি এসি রয়েছে। সেখান থেকেই বিস্ফোরণ হতে পারে। আমি সাথে সাথে বলছি, মেইন সুইচ অফ করো আর বাচ্চা শিফট করো। ওরা সেটাই করছে। মেইন সুইচ অফ করে বাচ্চা সব শিফট করে ফেলছে।’

ওই ইউনিটে আটকে পড়া রোগীদের উদ্ধার করে আনা হয়। এক ঘণ্টা ২০ মিনিটের প্রচেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে আসে আগুন। ফায়ার সার্ভিসের ধারণা, এসি বিস্ফোরণ থেকেই আগুনের সূত্রপাত।ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার ফখরুদ্দিন বলেন, ‘ভেতরে আইসিউইতে এসি ছিল। সেই এসি থেকে বিস্ফোরণ হতে পারে। তবে, বিষয়টি তদন্তের পর জানা যাবে।’সংশ্লিষ্টরা জানান, ওই ইউনিটে সাতজন রোগী ছিলেন, তাদের দ্রুত উদ্ধার করে হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে স্থানান্তর করা হয়। পাঁচতলায় ছিলেন ১৭৪ জন রোগী। সবাইকে সুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

এ নিয়ে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. রোকেয়া সুলতানা বলেন, ‘সাতজন পেশেন্ট ছিল। আমাদের চিকিৎসক আর দায়িত্বে যারা ছিলেন, একটু ধোয়া দেখেই কিন্তু তারা সব রোগীকে বের করে নিয়ে আসেন। এরা যেহেতু কার্ডিয়াক আইসিইউ, এ কারণে আমরা এসব রোগীকে জাতীয় হৃদরোগে ট্রান্সফার করিয়েছে। এরা সবাই ভালো আছে।’শিশু হাসপাতালের পরিচালক ডা. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, যত দ্রুত সম্ভব এই ইউনিটটি ঠিক করা হবে।এ ঘটনায় কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা জানা যায়নি।