• বৃহস্পতিবার , ১৩ জুন ২০২৪

বঙ্গবন্ধু টানেলে উচ্ছ্বসিত কেএসআরএম ডিএমডি


প্রকাশিত: ১০:৪৪ পিএম, ২৬ অক্টোবর ২৩ , বৃহস্পতিবার

নিউজটি পড়া হয়েছে ১৬৩ বার


বিশেষ প্রতিনিধি : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল বা সুড়ঙ্গ সড়ক বর্তমান সরকারের অবকাঠামোগত উন্নয়নের অনন্য উদাহরণ। নিঃসন্দেহে এটি আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের ও আনন্দের বিষয়ও। অহংকারের এ বঙ্গবন্ধু টানেল প্রকল্পের গর্বিত অংশীদার দেশের অন্যতম ইস্পাত প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান কেএসআরএম। কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মিত বঙ্গবন্ধু টানেল দেশের প্রথম ও একমাত্র টানেল।
শুধু তাই নয় দক্ষিণ এশিয়ায় নদীর তলদেশে নির্মিত প্রথম ও দীর্ঘতম সুড়ঙ্গপথও এটি। যার দৈর্ঘ্য ৩ দশমিক ৪৩ কিলোমিটার।বঙ্গবন্ধু টানেল নিয়ে এভাবেই উচ্ছ্বাস জানালেন কেএসআরএমের উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার জাহান রাহাত।

তিনি বলেন, আমাদের জন্য গর্বের বিষয় হলো- বঙ্গবন্ধু টানেলে প্রথম রড সরবরাহকারী দেশি প্রতিষ্ঠান হলো কেএসআরএম। সুড়ঙ্গপথ নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠানের শর্ত ও চাহিদার ভিত্তিতে কেএসআরএম এইচআরবি ৪০০ স্ট্যান্ডার্ড রড সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে মনোনীত হয়। কেএসআরএম টানেলে মোট চাহিদার প্রায় ৫০ শতাংশ রড সরবরাহ করেছে।

বর্তমান সরকারের ওয়ান টানেল টু সিটি কনসেপ্টে আনোয়ারা অংশের অবকাঠামোগত ব্যাপক উন্নয়ন হবে। বাড়বে কর্মসংস্থান। বিনিয়োগকারীরা উৎসাহিত হবে নতুন নতুন শিল্প কারখানা স্থাপনে। দেশের অন্যান্য অঞ্চলের সঙ্গে পর্যটন শহর কক্সবাজার, পার্বত্য জেলা বান্দরবানসহ দক্ষিণ চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলার যোগাযোগ সহজতর হবে। সময় ও অর্থের সাশ্রয় হবে।

তিনি বলেন, মূল শহরের ওপর চাপ কমবে যানবাহন ও জনসংখ্যার। মূলত বঙ্গবন্ধু টানেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েসহ বিভিন্ন মেগাপ্রকল্প বাস্তবায়নে বন্দরনগরী চট্টগ্রামের স্মার্ট যাত্রা শুরু হয়েছে এমনটাই বিশ্বাস আমাদের। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক ইচ্ছাশক্তির কারণে এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন সম্ভব হয়েছে। এসব প্রকল্পের কারণে উত্তরোত্তর সমৃদ্ধ হবে দেশের সামগ্রিক অর্থনীতি।