• বৃহস্পতিবার , ১৩ জুন ২০২৪

জুয়ার অ্যাপে নায়িকারা!


প্রকাশিত: ৯:১২ পিএম, ৩ জুন ২৪ , সোমবার

নিউজটি পড়া হয়েছে ১২ বার

 

বিনোদন রিপোর্টার :  এবার অনলাইন জুয়া কোম্পানির শুভেচ্ছাদূত হয়েছেন আলোচিত চিত্রনায়িকা পরী মণি। রোববার (২ জুন) নায়িকা নিজেই তাঁর ফেসবুক পেজে ওই কোম্পানির একটি বিজ্ঞাপন পোস্ট করেছেন। ভিডিওটি এবং অনলাইনসহ বিভিন্ন ডজিটাল ভার্সনে শোভা পাচ্ছে। জুয়া কোম্পানির ভিডিওতে তিনি জুয়ার ওয়েবসাইটটি ভিজিট করতে সবাইকে আমন্ত্রণ জানান!

দেশের আলোচিত চার জনপ্রিয় নায়িকাকে দেখা যাচ্ছে জুয়ার অ্যাপে। এতে সাধারণ মানুষকে যুক্ত হতে দেদারসে কথা বলে যাচ্ছেন তাঁরা। দেশ ও আন্তর্জাতিকভাবে নিষিদ্ধ এমন সাইটের বিজ্ঞাপন ও শুভেচ্ছাদূত হয়েছেন জয়া আহসান, অপু বিশ্বাস ও নুসরাত ফারিয়া। এরমধ্যে জয়া ও ফারিয়াকে শুধু বিজ্ঞাপনে পাওয়া গেলেও অপু কাজ করছেন শুভেচ্ছাদূত হিসেবে! আর তাঁদের বেশিরভাগেরই দাবি, ভুল তথ্যে তাঁরা এগুলোতে জড়িয়ে পড়েছেন। সর্বশেষ জুয়ার এ্যাপে যুক্ত হলো নায়িকা পরীমনি’ও।

উইনবাজি নামের একটি বেটিং সাইটের বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন জয়া আহসান ও নুসরাত ফারিয়া। ক্রিকেট বিশ্বকাপ চলাকালে (অক্টোবর-নভেম্বর) প্রচারে আসে তাঁদের বিজ্ঞাপনগুলো। ভিডিওতে বেশ সাবলীল ও চমকপ্রদ সব বার্তা দিতে দেখা যায় ফারিয়াকে। এতে তিনি নিজেই মানুষকে বাজি লাগার কথা বলছেন।

বিষয়টি নিয়ে কথা বলার চেষ্টা করা হয়েছে তিন তারকার সঙ্গেই। এরমধ্যে ফারিয়া বলেন, উইনবাজির জন্য আমি যে বিজ্ঞাপনটি করেছি, তা শুধু ইন্ডিয়ার মধ্যেই প্রচার হয়েছে। দেশে প্রচার হয়নি। দেশে প্রচার না হলেও বিষয়টি কি ভারতেও বৈধতা আছে কি-না জানতে চাইলে তিনি সদুত্তর দিতে পারেননি। জানালেন, বিষয়টি পুরোপুরি না জেনে এতে যুক্ত হয়েছেন। কিন্তু শুধু সেই সাইটেই নয়, ফারিয়া নিজেও তাঁর ইনস্টাগ্রামে এগুলোর প্রমোট করেছেন।

ফারিয়া এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলেও ভারতীয় আইন এ বিষয়ে বেশ কড়া। সম্প্রতি বলিউড-টলিউডের একাধিক তারকারও নাম জড়িয়েছে অনলাইন বেটিং সাইটের সঙ্গে। কয়েক মাস আগে একটি অনলাইন বেটিং অ্যাপের তছরুপ-কাণ্ডে ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরক্টরেট (ইডি) রণবীর কাপুরকে তলব করেছিল। এ ছাড়া বেটিং অ্যাপের প্রচারে নেমে শিরোনাম হয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের অভিনেত্রী-সংসদ সদস্য নুসরাত জাহান ও মিমি চক্রবর্তী।

এদিকে, গত আগস্টে ভারতের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক সংবাদমাধ্যম, অনলাইন বিজ্ঞাপনের মধ্যস্থতাকারী ও সোশ্যাল মিডিয়াসহ সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষকে অবিলম্বে জুয়ার ওপর বিজ্ঞাপন/প্রচারমূলক বিষয় দেখানো থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিয়েছে। এই পরামর্শ মেনে চলা ব্যতীত ভারত সরকার বিভিন্ন আইনের আওতায় যথাযথ পদক্ষেপ নিতে পারে বলে জানিয়েছে। ভারতেও জুয়ার বিজ্ঞাপন প্রচারে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে, এমনটা জানালে ফারিয়া বলেন, ‘আমাদের দেশে এ ধরনের বেটিং সাইটের বিজ্ঞাপন প্রচারে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তবে ভারতে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে বলে জানা নেই।’

ওদিকে বাবু ৮৮ নামের একটি বেটিং অ্যাপের শুভেচ্ছাদূত হয়েছেন অপু বিশ্বাস। নতুন বছরের শুরুতেই তাঁর একটি ভিভিও শুভেচ্ছা বার্তা পোস্ট করেছে ওই সাইটটি। এ বিষয়ে অভিনেত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ হলে তিনি বলেন, ‘আমি খুবই বিব্রত বোধ করছি। ওই ভিডিওটি ভুয়া। আমাকে কোথাও সেটি পোস্ট করতে দেখেছেন?’ ভিডিওটিতে অপুর কণ্ঠ পরিবর্তন বা লিপ রিডিংয়ে অসামঞ্জস্যতা খুঁজে পাওয়া যায়নি। বরং তাঁকেও বেশ সাবলীল মনে হয়েছে। এবং একজন শুভেচ্ছাদূত হিসেবে অপু সেই ভিডিওতে বক্তব্য দেন। অন্যদিকে, একই বিষয়ে কথা বলতে অভিনেত্রী জয়া আহসানের মুঠোফোন ও হোয়াটসঅ্যাপে যোগাযোগ করা হলেও তিনি কোনো সাড়া দেননি।

এদিকে অনলাইন জুয়া কোম্পানির শুভেচ্ছাদূত হয়েছেন আলোচিত চিত্রনায়িকা পরী মণি। রোববার (২ জুন) নায়িকা নিজেই তাঁর ফেসবুক পেজে ওই কোম্পানির একটি বিজ্ঞাপন পোস্ট করেছেন। ভিডিওতে তিনি জুয়ার ওয়েবসাইটটি ভিজিট করতে সবাইকে আমন্ত্রণ জানান! প্রায় দেড় মিনিটের ওই বিজ্ঞাপনে দেখা যায়, হলে বসে সিনেমা দেখছেন পরী মণি। এমন সময়ে তাঁর মোবাইলে জুয়া কোম্পানি থেকে ১০ হাজার টাকা জেতার মেসেজ আসে। খুশিতে চিৎকার করে ওঠেন তিনি।ফ্ল্যাশব্যাকে দেখানো হয়, বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচে রোহিত শর্মার আউটে উচ্ছ্বসিত এই চিত্রনায়িকা।

এরপর তাঁকে বলতে শোনা যায়, ‘একটু (কোম্পানির নাম) আনন্দে মেতে উঠেছিলাম। তুমিও পারো আমার মতো টিম বানিয়ে ম্যাচ প্রেডিক্ট করে জিতে নিতে নানা উপহার। ওয়েবসাইটে চলে যাও আর পেয়ে যাও আরও তথ্য।’

জুয়া কোম্পানির শুভেচ্ছাদূত হওয়া প্রসঙ্গে পরীমণির কাছে জানতে চাইলে বিরক্তি প্রকাশ করে তিনি পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘কে বলেছে এটা জুয়া কোম্পানির ওয়েবসাইট? ভালো করে খোঁজ নিয়ে ফোন করুন।’ পরী অস্বীকার করলেও ওই কোম্পানির ওয়েবসাইটটি ঘুরে দেখা গেছে, সেখানে চলছে বিভিন্ন লোভনীয় জুয়ার অফার।