বঙ্গবন্ধুর রাষ্ট্রভাষা আন্দোলন- স্বাধীনতা আন্দোলনের বীজ বপন

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে দক্ষিণাঞ্চল-পর্ব ১০ :-bbbbbbbbbb
bangladesher-shadinota-jidda-dokkinanchal-pic
জাতিরকন্ঠ রিপোর্ট  :  ১৯৫৮ সালে ঢাকার আরমানিটোলায় নিউপিকচার হাউজে অনুষ্ঠিত কাউন্সিল অধিবেশনে সর্বসম্মতিক্রমে প্রধানমন্ত্রী শহীদ সোহরাওয়ার্দীর অনুসৃত বৈদেশিক নীতির অনুমোদন করিল। ফলে মওলানা ভাসানী সাহেব ক্ষুদ্ধ হইয়া আওয়ামী লীগ নেতা ইয়ার মোহাম্মদসহ কাউন্সিল অধিবেশন ত্যাগ করিয়া চলিয়া যান।

bangobandu-vasani-www-jatirkhantha-com-bdbangabandhu_sheikh_mujibur_rahman-69উক্ত ঘটনার পরে মওলানা ভাসানী সাহেব নতুন রাজনৈতিক দল ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) প্রতিষ্ঠা করিলেন।দূর অতীতে ১৯৪৯ সালে পাকিস্তানের গভর্নর জেনারেল কায়েদে আজম মোহাম্মদ আলী  জিন্নাহ ঢাকার রমনা জনসভায় ঘোষণা দিলেনউর্দুই হবে পাকিস্তানের একমাত্র রাষ্ট্রভাষা। উক্ত জনসভায় জনগন তাহার বক্তব্যর বিরুদ্ধাচারণ করেন।

ফলে ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন শুরু হয়। উক্ত ভাষা আন্দোলনে সালাম রফিক বরকত জব্বারসহ অনেকে পুলিশের গুলিতে জীবন দান করে ঢাকার রাজপথ রক্তে রঞ্জিত করিলেন।

১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলন হইতে শুরু করিয়া সমকালীন সকল ছাত্র আন্দোলন ও রাজনৈতিক আন্দোলনে অংশ গ্রহণ করিয়া একাধিকবার কারাবরণ করিয়াছিbarkot। প্রকৃতপক্ষে রাষ্ট্রভাষা আান্দোলনই বাংলা স্বাধীনতা আন্দোলনের অংকুর/বীজ বপন করিয়াছে।

আইউব বিরোধী নির্বাচনী আন্দোলনে অংশ গ্রহণ করিয়া বরিশাল শহর হইতে বিডি (বেসিক ডেমোক্রেসি) মেম্বর নির্বাচিত হইয়াছিলাম কপ (কম্বাইন্ড অপোজিশন) এর মনোনিত প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ফাতেমা জিন্নাহকে ভোট দানের জন্য।

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com