‘হাসিনারা দশ টাকার কথা বলে ৭০ টাকায় চাল খাওয়াচ্ছে’

স্টাফ রিপোর্টার :  চালের দাম বেড়ে যাওয়ায় সরকারকে দোষারোপ করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা khalada-www.jatirkhantha.com.bdজিয়া। বলেছেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় গেলে ১০ টাকায় চাল খাওয়াবে বলেছিল। কিন্তু এখন চালের দাম ৭০ টাকা। এই সরকারের সময় মুক্তিযোদ্ধারা অসহায়, ঠিকভাবে খেতে পারছে না বলেও মন্তব্য করেন খালেদা জিয়া।

রবিবার গুলশান-১ এর ইমানুয়েল কনভেনশন সেন্টারে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের ইফতারে অংশ নিয়ে খালেদা জিয়া এসব কথা বলেন। বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, ‘আওয়ামী লীগ হলো চোরের দল। মুক্তিযুদ্ধের সময় তারা রিলিফ, গম চুরি করছে। ভোট চুরি তাদের প্রধান চরিত্র। তারা জানে সুষ্ঠু ভোট হলে পালাতে হবে। কিন্ত তারা এত বেশি লুট করেছে যে পালানোরও সুযোগ পাবে না।’

বিএনপিকে বাদ দিয়ে এদেশে কোনো নির্বাচন হবে না এমন হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ গোপন খবর নিয়ে বুঝতে পেরেছে যে, সুষ্ঠু নির্বাচন দিলে তাদের পরাজয় নিশ্চিত। তাই তারা চায়, নানা অপকৌশলে বিএনপিকে নির্বাচন থেকে বিরত রাখতে। কিন্তু বিএনপিকে বাদ দিয়ে আর কোনো নির্বাচন হবে না। নির্বাচন হবে সহায়ক সরকারের অধীনে, শেখ হাসিনার অধীনে নয়।’

খালেদা জিয়া অভিযোগ করে বলেন, ‘দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিএনপির জনপ্রিয় নেতাদের রাজাকার, যুদ্ধাপরাধীসহ নানা অপবাদ দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে, মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার করে নির্বাচন থেকে বিরত রাখার অপকৌশল নিয়েছে অবৈধ সরকার।’

খালেদা বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের সময় দেশ থেকে পালিয়ে বেড়িয়েছে, যারা গম চুরি, রিলিফ চুরি করেছে আজ সেই আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের সবচেয়ে বড় শক্তি বনে গেছে, তারা নিজেদের অপছন্দের ব্যক্তিকে নানা অপবাদ দিয়ে ঘায়েল করছে।’

মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘যে দেশ আপনারা স্বাধীন করেছেন তা কি এভাবে চলতে পারে? না পারে না। আপনাদের রুখে দাঁড়াতে হবে। এই দেশকে জালিম সরকারের হাত থেকে বাঁচাতে হবে।’

বিএনপিপ্রধান বলেন, আওয়ামী লীগের সময় শেষ। আর কয়েকটি মাস হাতে আছে। এরপর পালাতে হবে। সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে। হাসিনার অধীনে নয়। ইনশাআল্লাহ ২০১৮ সাল হবে জনগণের বছর। ইফতার মাহফিলে মুক্তিযোদ্ধা দলের নেতাকর্মীসহ শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com