সুন্দরীরা হার মানছে ডলির কাছে!

 
ডেস্ক রিপোর্টার : যৌনপল্লী সুন্দরীরা হার মানছে ডলির কাছে! প্রায় ৫০ কেজি ওজনের ৩২ই স্তনের একটি সেক্স ডল doly-www.jatirkhantha.com.bdঘণ্টায় ৯ হাজার বা ১০০ ইউরোতে ভাড়া দেওয়া হচ্ছে আয়ারল্যান্ডের একটি যৌনপল্লিতে। ধাতব অস্তির তৈরি এ পুতুলকে নিজের ইচ্ছা অনুযায়ী পজিশনে বসানোর সুযোগ রয়েছে ব্যবহারকারীর জন্য। এজন্য যৌনপল্লিতে যাওয়া পুরুষদের কাছে পুতুলটির বেশ চাহিদাও তৈরি হয়েছে। পল্লীর নারী যৌন কর্মীদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দিনদিন বাড়ছে এর চাহিদা।

সম্প্রতি ফাউন্ডেশন অব রেসপন্সিবল রোবটিকস এক পূর্বাভাস জানিয়ে বলেছে, আগামী ১০ বছরের মধ্যে ব্যাপকভাবে বাড়বে এই সেক্স ডলের।আর ওই ভবিষ্যদ্বাণীর সঙ্গেই যেন অনেকটা মিল রেখে বেড়েছে এর চাহিদার পরিমাণ। কারণ গত মাসে যুক্তরাষ্ট্র থেকে আনা প্যাসন ডলি নামের এ সেক্স ডলটিকে পল্লীতে নিয়ে আসার পর থেকে কয়েক ডজন খদ্দের সেটিকে ব্যবহার করেছেন।

আয়ারল্যান্ডের ডুবলিন লিবার্টির একটি পল্লীতে রাখা ওই সেক্স ডলটিকে বলা হচ্ছে আয়ারল্যান্ডের সবচেয়ে বাস্তবধর্মী সেক্স ডল। ওই পল্লীতে থাকা পূর্ব ইউরোপের দুই যৌনকর্মী সেটিকে ৯ হাজার টাকায় এক ঘণ্টা ও সাড়ে চার হাজার টাকায় আধা ঘণ্টা ব্যবহারের সুযোগ দিচ্ছেন। তবে ওই সেক্স ডলকে ব্যবহার করতে হবে পল্লীর ভিতরেই।

সেক্স ডলটি ব্যবহারের জন্য অনলাইনে বিজ্ঞাপনও দেওয়া হয়েছে। একটি অ্যাডাল্ট সাইটে বিজ্ঞাপনে লেখা হয়েছে, যৌন মিলনের জন্য আপনি কি টাকা অপচয় করছেন কিংবা পর্ন দেখছেন? সবচেয়ে সুন্দর নারীর সঙ্গে কেন আপনি নিজের ইচ্ছে মতো যতবার খুশি ততোবার যৌন মিলন করছেন না। আপনাকে আনন্দদানের জন্যই রয়েছে বাস্তবধর্মী সেক্স ডল প্যাসন।

সেখানে আরও লেখা হয়, ডলির সঙ্গে এক ঘণ্টা কাটানোর ব্যয় ১০০ ইউরো আর আধা ঘণ্টায় ৫০ ইউরো। ডলির ঘরটিকেও বেশ ভালোভাবে সাজিয়েছেন এর মালিক। ঘরে প্রবেশের পরই দেখা যায়, একটি খাটে শুয়ে আছে ডলি এবং পাশেই বিছানায় রাখা আছে কনডম আর টিস্যু পেপার।

এ বিষয়ে সেক্স ডলটির মালিক বলেন, গত এক মাসে আমরা কয়েক ডজন খদ্দের পেয়েছে। আয়ারল্যান্ডের বিভিন্ন বয়সের লোকজন আসছেন এটির সঙ্গে যৌন মিলন করতে। পুরুষদের কাছে নারী যৌন কর্মীদের যেমন চাহিদা, ঠিক তেমন চাহিদাই লক্ষ করা যাচ্ছে এই সেক্স ডলের প্রতি।

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com