মালদ্বীপে পাল্টা ক্যু প্রেসিডেন্টের!

 

ডেস্ক রিপোর্টার :  মালদ্বীপে ক্যু’র দৃশ্যপট বদলাচ্ছে। এবার পাল্টা ক্যু প্রেসিডেন্টের পক্ষে!! মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লাহ ইয়ামিনকে অভিশংসিত WhatsApp-Image-2018-02-03-at-21.57.10-1200x545_cকরার যে কোনও পদক্ষেপ রুখে দিতে সেনা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ আইন কর্মকর্তা, সেনাপ্রধান মেজর জেনালের আহমেদ সিয়াম এবং ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কমিশনার আব্দুল্লা নওয়াজ। তাঁরা প্রেসিডেন্টকে অভিশংসনের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন। তারা জানিয়েছেন, অ্যাটর্নি জেনারেলের নির্দেশ বাস্তবায়ন করবেন। দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে প্রচারিত এক যুক্ত বিবৃতিতে তারা প্রেসিডেন্টের পক্ষে অবস্থান নেন।

যৌথ সংবাদ সম্মেলনে-
সুপ্রিম কোর্টের আদেশ বাস্তবায়ন না করায় প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন-এর অভিশংসনের গুঞ্জন ওঠে। বিরোধীরা দাবি করছিলো, প্রেসিডেন্ট সর্বোচ্চ আদালতের আদেশ অমান্য করে দেশকে সংকটের মুখে ঠেলে দিয়েছেন। গুঞ্জন উঠেছিল, তিনি অভিশংসিত হতে যাচ্ছেন। এক পর্যায়ে বিরোধী জোট শীর্ষ আইন কর্মকর্তা এবং প্রসিকিউটরের বিরুদ্ধে অনাস্থা আনেন। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা  জানিয়েছে, এর কিছুক্ষণের মধ্যে সেনাবাহিনীপার্লামেন্ট  ভবনের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সিলগালা করে দেয়।
Maldip-army-www.jatirkhantha.com.bd......
রবিবার মালদ্বীপের প্রধান আইন কর্মকর্তা মোহামেদ অনিল নিরাপত্তা বাহিনীকে দেশটির প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিনকে অভিশংসনে সুপ্রিম কোর্টের যেকোনও পদক্ষেপকে রুখে দেওয়ার আহ্বান জানান। দেশটির সেনাবাহিনী ও পুলিশও বিষয়টিকে সমর্থন করেছে। তার অভিশংসন ‘জাতীয় সংকট’  সৃষ্টি করতে পারে বলে আশঙ্কা জানান তারা।

অনিল তার বক্তব্যে জোর দিয়ে জানান, প্রেসিডেন্টকে অভিশংসনের ক্ষমতা কেবল পার্লামেন্টের রয়েছে। কোনও আদালত এটা করতে পারে না। আর পার্লামেন্টেও তা দুই-তৃতীয়াংশ ভোটে পাস হতে হবে। তাই আদালত এমন উদ্যোগ নিলে তা দেশটির সংবিধানের লঙ্ঘন হবে। তিনি বলেন, মালদ্বীপের অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে আমি ঘোষণা করছি যে, সুপ্রিম কোর্টের নিজ উদ্যোগে প্রেসিডেন্টকে অভিশংসনের কোনও নির্দেশ বা রায় বৈধ কাঠামো বা সংবিধানের আওতায় পড়ে না। আমি খুব পরিষ্কারভাবে জানতে পেরেছি, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও এমন কোনও আদেশ মানবে না।’

যৌথ বিবৃতিতে প্রতিরক্ষা বাহিনীর প্রধান মেজর জেনারেল আহমেদ সিয়াম ও ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কমিশনার আব্দুল্লা নওয়াজ বলেন, পুলিশ ও সামরিক বাহিনী এমন কিছু হতে দেবে না যাতে দেশে অস্থিতিশীলতা ছড়িয়ে পড়ে। তারা দুজনই আশ্বস্ত করেন যে, তাদের বাহিনী এমন অসাংবিধানিক নির্দেশ মানবে না আর নিরাপত্তা বাহিনী অ্যাটর্নি জেনারেলের উপদেশ মেনে চলবে।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, তিন দিন আগে সুপ্রিম কোর্ট বিরোধী ৯ নেতার বিরুদ্ধে আনা সরকারের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে তাদেরকে মুক্তির নির্দেশ দেয়। কিন্তু সরকার তাতে মোটেও কর্ণপাত করেনি। মালদ্বীপের সর্বোচ্চ আদালতের আদেশ অমান্য করে অভিশংসনের শঙ্কায় পড়েন সে দেশের প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন। এছাড়া সুপ্রিম কোর্টের আদেশে গত বছর বরখাস্ত হওয়া বিরোধীদের দলের ১২ সংসদ সদস্যকেও পুনর্বহাল করা হয়। ফলে ৮৫ আসন নিয়ে পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে যায় বিরোধী দল। দেশব্যাপী সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ শুরু হলে গুঞ্জন ওঠে অভিশংসিত হতে যাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন। প্রধান বিচারপতিকে পদত্যাগে বাধ্য করে গ্রেফতার করা হতে পারে বলেও গুজব ছড়ায়।

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com