ভীমরতি ক্রিয়া জামাই-শ্বাশুড়ির-অতঃপর বিচ্ছেদ!

অনলাইন ডেস্ক রিপোর্টার : ভীমরতি ক্রিয়া জামাই-শ্বাশুড়ির অতঃপর বিচ্ছেদ! ভারতে শাশুড়িকে বিয়ে করার ঘটনায় 11তোলপাড় ওঠার পর অবশেষে সেই শাশুড়িকে ডিভোর্স দিয়েছে সুরাজ মেহতা নামের ২২ বছরের যুবক। তার শাশুড়ি আশা দেবীকে (৪২) বিয়ের জন্য নিজের বউ ললিতাকে ত্যাগ করেছিল সেই ছেলে।

গত বছর বিহারের পুরিয়ানা গ্রামে ললিতা ও সুরাজ মেহতার কাছে বেড়াতে আসে ললিতার মা আশা দেবী। সেখানে প্রায় ১ বছর থাকেন তিনি। এ সময়ে চলে তাদের সম্পর্ক। এ সময় সম্পর্কের বিষয়টি জানতে পেরে ললিতা তার বাবাকে জানায়। কিন্তু দিল্লিতে একটি ফ্যাক্টরিতে কাজ করা ললিতার বাবা আশা দেবীকে এই সম্পর্ক থেকে টলাতে পারেনি। এক পর্যায়ে তাদের বিষয়ে গ্রামবাসীর তীব্র আপত্তির কারণে জুন মাসের ১ তারিখ বাসা থেকে পালিয়ে বিয়ে করেন আশা দেবী ও সুরাজ। বিষয়টা নিয়ে তীব্র সমালোচনা ও আলোচনা চলে ভারতের গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

কিন্তু অবশেষে শাশুরির সঙ্গেও সম্পর্ক ছেদ করলেন সুরাজ। সম্প্রতি তিনি জানান, আশা দেবীকে সে এখন আবারো মায়ের মতই দেখছে! আর সে কারণেই আশা দেবীকে ডিভোর্স দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। তবে ললিতার সঙ্গেও সম্পর্ক পুনঃ স্থাপন করছে না সুরাজ।

গলফ নিউজকে সুরাজ জানায়, বিয়ের দুই মাস পর আশা ও সুরাজ দুইজনই অনুভব করে কত বড় পাগলামি করেছে তারা।

তবে আশা দেবী জানান, আমি ভুল করেছি এবং কোর্টে ডিভোর্সের কাগজও পাঠিয়েছি। সুরাজ আমার মেয়ে জামাই। আমি চাই সে এবং আমার মেয়ে একত্রে থাকুক। আমিও আমার স্বামীর কাছে ফেরত যেতে চাই।

কিন্তু আসলে তার এই আশা কতটা সফলতা পাবে তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে সকলের। গালফ নিউজ ও আফ্রিকান স্পট লাইট।

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com