বইমেলায় মওদুদের প্রেমিকা কাহিনী এবং-

moudud-www.jatirkhantha.com.bdনীপা খন্দকার ; একুশে বইমেলায়  মওদুদের প্রেমিকা কাহিনী  ছিল মঙ্গলবারের হটকাহিনী।তরুণ কবিরা একে একে স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি করছিলেন। এ সময় পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী মওদুদ আহমদ। তাঁকে দেখে সেই কবিরা ঘিরে ধরলেন। একজন বলে ওঠেন, ‘স্যার, স্যার এখানে একটু আসুন। আমাদের কবিতা শুনুন।’

মওদুদ কিছুক্ষণের জন্য বসেন সেই মঞ্চে। কবিতা শুনলেন, আবার বাহ, বাহ বলে উৎসাহও দিলেন। কিছুক্ষণ থাকার পর তিনি সেখান থেকে যেতে চাইলে তরুণ কবিরা আরও কিছুক্ষণ থাকতে বললেন। এ সময় মওদুদ হেসে বললেন, ‘আমাকে এক্ষুনি যেতে হবে, আমার প্রেমিকা অপেক্ষা করছে আমার জন্য।’ উপস্থিত সবাই এ কথা শুনে হেসে উঠলেন।

কাছে গিয়ে জানতে চাইলে মওদুদ আহমদ বলেন, ‘আমার প্রেমিকা আর কেউ নয়, ইউপিএল থেকে “বাংলাদেশে গণতন্ত্র ১৯৯১ থেকে ২০০৬” নামের আমার বইয়ের একটি অনুবাদ গ্রন্থ বেরিয়েছে, সেই প্রেমিকার কাছে যাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘বইমেলায় গত বছরে একটি অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছিল। এবার যাতে এ ধরনের ঘটনা না ঘটে, সে বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। তবে ভালো লাগছে বইমেলা প্রসারিত হয়েছে। নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। লেখক ও পাঠকদের সংখ্যা বেড়েছে।’
মওদুদ বলেন, ‘এবারের বইমেলায় অনেক তরুণ লেখকের বই দেখতে পারছি। এই তরুণদের দেখে উৎসাহিত ও অনুপ্রাণিত হই।

এই তরুণদের হাত ধরে বাংলা সাহিত্য আরও সমৃদ্ধ হবে।’ মওদুদ আহমদ জানান, আজ মঙ্গলবার তাঁর প্রয়াত ছেলে আমান মওদুদের আঁকা চিত্র নিয়ে পলাশ প্রকাশনী একটি বই বের করেছে। সেই বইটির মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে বিকেলে বাংলা একাডেমির নজরুল মঞ্চে আসেন তিনি।

এরপর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বইমেলায় ঘুরতে আসেন। পরে রাজনীতি নিয়ে জানতে চাইলে মওদুদ বলেন, ‘পলিটিক্স নিয়ে নো কমেন্ট। যে দেশে রাজনীতি নেই, সে দেশে রাজনীতি নিয়ে কিছু বলব না।’

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com