পায়ুপথে সোনা চোরাচালানী রানা পাকরাও

বিমানবন্দর প্রতিনিধি  :  এবার পায়ূপথে সোনা চোরাচালানকালে ধরা পড়েছে দুর্ধর্ষ গোল্ড স্মাগলার সোহেল রানা (৩০)। শুল্ক গোয়েন্দাদের একটি gold smaglar-www.jatirkhantha.com.bdদল আজ রবিবার সকালে শারজাহ থেকে এয়ার এরাবিয়া ফ্লাইটে সে ঢাকায় আসলে তাকে চ্যালেঞ্জ করে। ঘটনার একপর্যায়ে সে পায়ুপথে সোনা আনার কথা স্বীকার করে। পরে তাকে হাসপাতালে নিয়ে শরীর স্ক্যানিং করা হলে পায়ুপথে দুটি সোনার বার এর অস্তিত্ব ধরা পড়ে।

শুল্ক গোয়েন্দারা জাতিরকন্ঠকে জানান, রানার সাথে থাকা পলিথিন ব্যাগের ভেতর ভ্যাসলিনের কৌটার মধ্য থেকে আরও ২টি স্বর্ণ বার এবং তার বহনকৃত হ্যান্ডব্যাগ থেকে ১০৯ গ্রাম স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করেছে। গোর্ড স্মাগলার সোহেল রানার পিতার নাম জান শরীফ, বাড়ি রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে। তার পাসপোর্ট নম্বর: BF 0980574। সে আজ সকাল (৭:৩০টায়) শারজাহ থেকে এয়ার এরাবিয়া বিমানের G9513 ফ্লাইটে শাহাজালাল বিমান বন্দরে অবতরণ করেন।

কাস্টমস এবং ইমিগ্রেশন আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে গ্রিন চ্যানেল পেরিয়ে চলে যাওয়ার সময় তাকে চ্যালেঞ্জ করে শুল্ক গোয়েন্দার দল। রানার চোখে কালো দাগ ও হাটাচলায় অস্বাভাবিকতা লক্ষ করলে শুল্ক গোয়েন্দার সন্দেহ আরো ঘনীভূত হয়। তবে রানা কোনোভাবে তার পেটে স্বর্ণ থাকার কথা স্বীকার করছিলেন না। পরে তাকে শুল্ক গোয়েন্দা অফিস কক্ষে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। কিন্তু তিনি বারংবার তার কাছে স্বর্ণ থাকার কথা অস্বীকার করে আসছিল।

পরে রানাকে উত্তরার উইমেন্স মেডিকেল কলেজ এ নিয়ে এক্সরে করানো হয়। রিপোর্টে যাত্রীর তলপেটে স্বর্ণের অস্তিত্ব সম্পর্কে আরো নিশ্চিত হয় শুল্ক গোয়েন্দার দল। কর্তব্যরত ডাক্তারও এটি উল্লেখ করেন। এরপর যাত্রীকে বিমানবন্দর এনে শরীর থেকে স্বর্ণ বের করার চেষ্টা চলতে থাকে।

এপর্যায়ে কলা ও প্যাকেট জুস খেতে দেয়া হয়। বিমানবন্দরে রক্ষিত লুঙ্গি পরে শুল্ক গোয়েন্দাদের উপস্থিতিতে টয়লেটের অভ্যন্তরে বিশেষ কায়দায় পায়ুপথ দিয়ে ২টি স্বর্ণবার বের করে আনেন এবং পরে তার হাতব্যাগের ভ্যাসলিনের কৌটার ভেতর থেকে আরও ২ টি স্বর্ণবার ও প্যাকেট থেকে ১০৯ গ্রাম অলংকার পাওয়া যায়।

জিজ্ঞাসাবাদে রানা জানায়, সে এসব স্বর্ণ শারজাহ এয়ারপোর্টের ভেতরে নিজেই পুশ করেছে। পাসপোর্ট পরীক্ষায় দেখা যায়, ২০১৭ সালে তিনি ৯ বার শারজাহ ভ্রমণ করেছেন। তবে প্রতিবার স্বর্ণ বহন করেছিলেন কিনা তা জানার চেষ্টা চলছে। আটক ৪টি স্বর্ণবারের প্রতিটির ওজন ১১৬ গ্রাম। এছাড়া তিনি স্বর্ণালংকার আনেন যাদের মোট ওজন ১০৯ গ্রাম। আটক মোট স্বর্ণের পরিমাণ ৫৭৪ গ্রাম।আটক স্বর্ণের মূল্য প্রায় ২৮ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা। আটক সোহেল রানাকে চোরাচালানের দায়ে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com