পাঠ্যবইয়ে ‘হেফাজতীকরণ’ দূর করতে মাঠে শিক্ষামন্ত্রীর বিশেষজ্ঞরা

স্টাফ রিপোর্টার :  পাঠ্যবইয়ে ‘হেফাজতীকরণ’ দূর করতে নেমেছেন বিশেষজ্ঞরা । এজন্য এসএসসি hafajot-www.jatirkhantha.com.bdপর্যায়ে ১২টি পাঠ্যবইয়ে পরিবর্তন আসছে। পাশাপাশি যেসব পাঠ্যবইয়ে ‘হেফাজতীকরণ’ হয়েছে, তা পর্যালোচনা করছেন বিশেষজ্ঞরা।বৃহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সঙ্গে এক বৈঠক শেষে তাৎক্ষণিক ব্রিফিংয়ে শিক্ষাবিদ ও বিশিষ্টজনেরা এসব কথা বলেন।

বৈঠক শেষে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এসএসসিতে বাংলা, ইংরেজি, বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়, বাংলাদেশ ও বিশ্ব সভ্যতার ইতিহাস, গণিত, উচ্চতর গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন, জীববিজ্ঞান, উদ্ভিদ বিজ্ঞান, অর্থনীতি ও হিসাব বিজ্ঞান- এই ১২টি বই পর্যালোচনা করে সহজ, সাবলীল ও প্রয়োজনে ছোট করা হবে।

তিনি বলেন, এছাড়া কারিকুলাম, পরীক্ষা পদ্ধতি, ফলপ্রণয়ন প্রদ্ধতিসহ অন্যান্য দিকও পর্যালোচনা চলছে। নাহিদ বলেন, ‘আমাদের মূল লক্ষ্য- শিক্ষা ব্যবস্থা  অপেক্ষাকৃত উন্নত পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া। সে লক্ষ্যে শিক্ষাবিদ ও দেশের বিশিষ্ট নাগরিকদের সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটি এসব কাজ করবে।’

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় শুরু হয়ে এ বৈঠক দুই ঘণ্টা স্থায়ী হয়। এতে ড. ফরাস উদ্দিন আহম্মেদ, অধ্যাপক মনজুর আহমেদ, রাশেদা কে চৌধুরী, ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল, অধ্যাপক কায়কোবাদ, অধ্যাপক আখতারুজ্জামান, অধ্যাপক এমএম আকাশ, অধ্যাপক শ্যামলি নাসরিন চৌধুরী, অধ্যাপক তাসলিমা নাসরিন প্রমুখ অংশ নেন।hh

এক প্রশ্নের জবাবে অধ্যাপক জাফর ইকবাল বলেন, ‘আপনারা পাঠ্যবইয়ে হেফাজতীকরণের বিষয় জানতে চাচ্ছেন। বাংলা বিষয়ের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে অধ্যাপক শ্যামলি নাসরিন চৌধুরীকে। উনি একজন শহীদ জায়া। তিনি বিষয়টি ভালোভাবে পর্যালোচনা করে আমাদের উদ্ধার করবেন বলে মনে করি।

অধ্যাপক এমএম আকাশ বলেন, ‘আমি অর্থনীতির বইটি দেখছি। সেখানে কোনো ভুল থাকলে সংশোধন করা হবে। জটিলতা থাকলে সহজ করা হবে। সংবিধানের বিরুদ্ধে কিছু থাকলে বাদ যাবে।’
অধ্যাপক মনজুর আহমেদ বলেন, ‘পাঠ্যবইয়ে রাতারাতি বা বৈপ্লবিক কোনো পরিবর্তন হচ্ছে না। সংস্কার ধারাবাহিক প্রক্রিয়া, যুগের চাহিদার সঙ্গে মিলিয়ে তা করা হয়।’

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com