পদ্মা সেতু ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজতে তদন্ত কমিশন না করায় ক্ষুদ্ধ আদালত

হাইকোর্ট রিপোর্টার :  হাইকোর্টের নির্দেশনা সত্ত্বেও পদ্মা সেতু নির্মাণ চুক্তি এবং দুর্নীতির মিথ্যা গল্প সৃষ্টির নেপথ্যে প্রকৃত padma-www.jatirkhantha.com.bdষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করতে তদন্ত কমিশন গঠন না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আদালত। একইসঙ্গে আসছে ৩১ আগস্টের মধ্যে তদন্ত কমিশন গঠন করে হাইকোর্টে প্রতিবেদন দিতে ফের আদেশ দেয়া হয়েছে।

বুধবার বিচারপতি কাজী রেজাউল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ এই আদেশ দেন। তদন্ত কমিশন গঠনে রাষ্ট্রপক্ষ আবারো সময় আবেদন করলে আদালত ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, গেলো ফেব্রুয়ারি মাসে অর্ডার হয়ে গেছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত আপনাদের চিঠি চালাচালি শেষ হয় নাই।পরে আদালত তদন্ত কমিশন গঠনে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সরকারকে সময় বেধে দেন। আদালতে  রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

এর আগে গেলো ২০ মার্চ পদ্মা সেতু নির্মাণ চুক্তি এবং দুর্নীতির মিথ্যা গল্প সৃষ্টির নেপথ্যে প্রকৃত ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করতে কমিটি বা কমিশন গঠনের অগ্রগতি প্রতিবেদন  ৭ মে’র মধ্যে দাখিল করতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। গেলো ১৫ ফেব্রুয়ারি পদ্মা সেতু নির্মাণ চুক্তি এবং দুর্নীতির মিথ্যা গল্প সৃষ্টির নেপথ্যে প্রকৃত ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করতে তদন্ত কমিশন গঠন করতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না এবং দোষীদের কেন বিচারের মুখোমুখি করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

দুই সপ্তাহের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ, স্বরাষ্ট্র, আইন ও যোগাযোগ সচিব এবং দুদকের চেয়ারম্যানকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী এ কমিটি বা কমিশন গঠনের বিষয়ে কি পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে ৩০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে নির্দেশ দেয়া হয়। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি একটি জাতীয় দৈনিকে ইউনূসের বিচার দাবি: আওয়ামী লীগ ও সমমনা দলগুলো একাট্টা’ শীর্ষক প্রকাশিত প্রতিবেদনসহ বিভিন্ন পত্রিকার সংবাদের কথা নজরে নিয়ে হাইকোর্ট এ আদেশ দেন।

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com